আপনার ঘরকে দূষণমুক্ত ও স্বাস্থ্যকর রাখবে যে গাছগুলো

indoor plants

দিন দিন পরিবেশ দূষণের সাথে সাথে ঘরের বাতাসও হয়ে পরছে দূষিত। ফলে শ্বাসকষ্টসহ নানা সমস্যা্র সম্মুখীন হতে হচ্ছে।বাজার থেকে এয়ার পিউরিফায়ার তো আমরা অনেকেই ব্যবহার করি। কিন্তু তার চেয়ে বহুগুণ ভালো ইন্ডোর প্ল্যান্ট। এগুলো শুধু ঘরকে দূষণ মুক্তই করে না, স্ট্রেসও কমায়। তার সাথে আপনার ঘরে নিয়ে আসবে অরন্যের ছোঁয়া। তেমনই কিছু ইন্ডোর প্ল্যান্ট সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।

মানি প্ল্যান্ট: 

এটি বাংলার ঘরে ঘরে পরিচিত একটি নাম। তবে সেটা এর কার্যকারিতা সম্পর্কে যতটা, তার থেকেও বেশি এর নামের জন্য। এর বাতাস শোধনের ক্ষমতাকে স্বীকৃতি দিয়েছে নাসাও। আলো পড়ে না, এমন যে কোনও ঘরে একে রাখা যেতে পারে। সপ্তাহে একবার পানি দিলেই যথেষ্ট।

 

স্নেক প্ল্যান্ট:

 এই গাছটিও বাতাসে অক্সিজেন যোগ করে বিভিন্ন দূষিত পদার্থ দূর করে। এর আরও বিশেষত্ব হল, এটি রাতেও ক্রমাগত বাতাসে অক্সিজেনের যোগান দিয়ে যায়। বদ্ধ ঘরের ক্ষেত্রে এটি একটি আদর্শ গাছ। একে রাখার সবচেয়ে ভাল জায়গা হল শোওয়ার ঘর। এই গাছের তেমন কোন যত্ন নিতে হয়না। পানি অথবা আলোর বিশেষ প্রয়োজন নেই,তাই সহজে মরে যায়না। রাতেও অক্সিজেন সরবরাহ করে পাশাপাশি বাতাসের টক্সিন ও দূর করে। আপনার বেডরুম এ রাখার জন্য আদর্শ গাছ এটি।

 আল্যোভেরাঃ

মাত্র একটি গাছ ৯টি বায়োলজিক্যাল এয়ার পিউরিফায়ার ক্যানের কাজ করে। ঘরের মধ্যের অক্সিজেনের মাত্রা বাড়াতে এর জুড়ি নাই। ঘরের মধ্যে থাকা কার্বন-ডাই-অক্সাইড এবং কার্বন-মনো-অক্সাইড, ফর্মালডিহাইড এর মতো টক্সিন শুষে নেয় নিমিষে।

স্পাইডার প্ল্যান্টঃ

এরা খুব কম আলোতে সালোকসংশ্লেষণ করতে পারে ফলে অক্সিজেনের যোগান দিতে পারে ২৪ ঘণ্টা। একটি গাছ প্রায় ২০০ বর্গ মিটার জায়গার বাতাস পরিশুদ্ধ করে তুলতে পারে। তাছাড়া স্টাইরিন, গ্যসোলিন জাতীয় টক্সিন বাতাস থেকে শুষে নিতে সক্ষম এই গাছ।

 ফিকাসঃ

এটি ঘরে টাটকা বাতাসের যোগান দেয়। খুব একটা পানি এবং আলোর দরকার হয়না। খুব ভালো বাতাস পরিষ্কার করতে পারে। কিন্তু যাদের ঘরে ছোট বাচ্চা অথবা পোষা প্রাণী আছে  এই প্ল্যান্ট ঘরে রাখবেন না, কারণ এই গাছের পাতায় বিষক্রিয়া হতে পারে।

এই গাছগুলো আপনার বাসার বায়ুতে থাকা বিভিন্ন ক্ষতিকর উপাদান মুক্ত করে নিঃশ্বাস নেবার উপযোগী অক্সিজেনের পরিমাণ কে আরো বাড়িয়ে তলে।

About Eileithyia Gabriel 13 Articles
আমি heilcat.com এর এডমিন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, আন্তর্জাতিক, ফ্যাশন, নারী যে কোন বিষয়ে আমি লিখে থাকি। মেসেঞ্জারে আমাকে নক দিতে পারেন এখানে

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*